Home শিরোনাম নাটোর-বগুড়া মহাসড়ক: কচ্ছপগতিতে অনিয়মে চলছে সংস্কার কাজ

নাটোর-বগুড়া মহাসড়ক: কচ্ছপগতিতে অনিয়মে চলছে সংস্কার কাজ

555
0

নিজস্ব প্রতিবেদক:
পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ঘরমুখো মানুষের দূর্ভোগ কমাতে নাটোরের সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে উত্তরাঞ্চলের অন্যতম প্রবেশদ্বার নাটোর-বগুড়া মহাসড়কে। কিন্তু কাজের কচ্ছপগতির কারণে ঈদের আগে কাজ শেষ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন পরিবহন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। এছাড়া কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ করেছেন তারা।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের নাটোর অংশের ৩২ কিলোমিটারের মধ্যে কয়েক কিলোমিটার এখনও খানাখন্দ অবস্থায় রয়েছে। উত্তরাঞ্চলগামী বাসগুলোর এই স্টপেজের দুইপাশের সড়ক প্রসস্ত করণ কাজ ঈদের আগে দূর্ভোগ বাড়াচ্ছে বলে অভিযোগ চালক ও যাত্রীদের। এছাড়া বৃষ্টির পানি জমে যাওযায় সড়কের কাঁচা অংশটুকুও কাঁদায় পরিণত হয়ে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। সিংড়া উপজেলার শেরকোল ব্রীজ থেকে সিংড়া বাজার পর্যন্ত থেমে থেমে সড়কের খানাখন্দ সংস্কার কাজ কয়েক মাস ধরে চলছে।

এ পথে চলাচলকারী যানবাহনের চালকদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে একটি এক্সক্যাভেটর ও একটি রোলার মেশিন দিয়ে ঢিমেতালে চলা রাস্তা খোঁড়াখুড়ির কাজ এখনও শেষ না হওয়ায় ঈদের আগেও তা শেষ হবে কি না, এ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন অনেকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঈদে ঘরমুখো মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে এবার রমজানের শুরুতেই নাটোর-বগুড়া মহাড়কের ১৪ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারের উদ্যোগ নেয় স্থানীয় সড়ক বিভাগ। এছাড়া চলাচলে অনুপযোগী বিভিন্ন গ্রামীণ সড়ক সংস্কার কাজও শুরু হয়। এসব সড়কের সংস্কার কাজ পরিদর্শনে গিয়ে ২০ রমজানের মধ্যে কাজ শেষ করার নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক। কিন্তু এখনো শেষ না হওয়ায় ঈদে এ সড়কে চরম দূর্ভোগ হবে বলে মনে করছেন এই মহাসড়কে চলাচলকারী যানবাহনের চালক ও যাত্রীরা।

বাসচালক আবুল কালাম আজাদ ও রবিউল ইসলাম সহ যাত্রীরা জানান, নাটোর-বগুড়া মহাসড়কটিতে কয়েক মাস ধরে দূর্ভোগ তাদের পিছু ছাড়ছে না। সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। মাইক্রোবাস চালক আরিফ হোসেন ও বেলায়েত হোসেন বলেন, পর্যাপ্ত রাস্তা সংস্কার উপকরণ না থাকায় সংস্কার কাজ চলছে কচ্ছপগতিতে।

রিকসা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম জানান, খানাখন্দে পূণ:নির্মাণ সড়কটি সংস্কারে নানা অনিয়মের অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, দু’পাশ দিয়ে মাটির ফেলে রাখায় ভ্যান-রিকসা সহ পথচারীদের চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

নাটোর জেলা মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসান ইমাম জানান, মহাসড়কের কোন কোন জায়গায় সড়কের পিচ উঠিয়ে (ডাব্লবিএম) না করেই কার্পেটিং করা হচ্ছে। তিনি বলেন,নাটোর সড়ক ও জনপথের কিছু অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজসে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে যেনতেন করে এই সংস্কার কাজ করা হচ্ছে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়,নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের ১৪কিলোমিটার মধ্যে প্রায় ২কিলোমিটার সড়কের কাটিং শেষে সাববেজ এবং ৩কিলোমিটার সড়কের কার্পেটিংয়ের কাজ শেষ করেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী মীর হাবিবুল্লাহ জানান, দরপত্র অনুযায়ী কাজ করা হচ্ছে। তিনি বলেন,কোন অনিয়ম-দূর্নীতি করার সুযোগ নেই।
নাটোর সড়ক ও জনপথের নির্বাহী প্রকৌশলী জাবেদ হোসেন তালুকদার বলেন, ঈদে ঘরমুখো মানুষের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে নাটোর-বগুড়া সড়কের ১৪কি.মি. মধ্যে ৭কিলোমিটার ঈদের আগেই সংস্কার কাজ শেষ হবে।

তিনি আরও বলেন, ১৪কিলোমিটার সড়কের পূন:নির্মাণ ও মজবুতিকরণ মেরামত ওভারলে কাজের সংস্কারের বরাদ্দ ১৬কোটি টাকা। সংস্কার কাজে অনিয়ম-দূর্নীতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন,কোন অনিয়ম-দূর্নীতি থাকলে বিষয়টি অবশ্যই খতিয়ে দেখা হবে।

নাটোরের জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ বলেন, ঈদে ঘরমুখো মানুষ যাতে এবার সড়ক পথে নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারেন সেজন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোকে ঈদের আগেই সংস্কার কাজ শেষ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন:

Previous articleসরকার সবসময় জনগনের পাশে আছেন–পলক
Next articleযে স্মৃতির জোরে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানো যায়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here